যদিও লুকিয়েছো

ভরা রৌদ্রোরে লাখো জনতার ভীড়ে
তুমি এসেছো মুক্ত হয়ে সবারে ম্মৃতি ভর করে,
অন্তিমযাত্রায়ও ভুলেনি কেহ্ তোমায়
আপন স্বজন হারানোর বেদনা যেমন
তেমনি লেগেছিল মনে,
ভেবে এসেছিল জানাযায়, ছিলে সবে ক্রন্দনে।

দেখিলে তুমি অবাক হতে !
করিয়াছে তোমার লাগি শোক
রেখে গেলে কর্মে প্রমান,তোমার আছে বিশ্বলোক।

ভুলিবে না কেহ্ যদিও লুকিয়েছো তোমার দেহ
রক্তের বাঁধনও যেখানে মানে হার,
এমনি বন্ধনে মানুষের তরে
গড়েছো তুমি আপন স্বজনে তার।

লাশের ভার সইতে না পেরে
শোকে স্তব্ধ আজ বনানীর আশি নাম্বার শৈল্পিকবাড়ি,
চির তরে আহা! তুমি বন্ধন ছেড়ে
এতকাছে থেকে তবুও বহুদূরে জমালে পাড়ি।

জাতীয় পতাকায় মোড়ানো দেহ…!
বেঁচে থাকতেও সম্মান, মরে গিয়েও সম্মান,
মরার পরেও অনন্তকাল সম্মান…! দাও হে প্রভু তারে
এমন মৃত্যু পাওয়া স্বপ্ন সবার !
এমন কপাল কতজনের বলো হতে পারে।

(Visited 93 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *