রাজশাহী ২২.১/১৮

বহুক্ষণ তোমার সাথে কথা না হলে পাপ বাড়ে, মনে ভাবি বুঝি বুকপকেটে হাবিয়া তুলেছি! তখন ছিনতাই হয়েছিলো, সব টাকা নিয়ে নিল; ওরা যে কেনো এতো নোংরা হয়ে গেলো! এটিএম বুথ আর ডেবিট কার্ড পরস্পরকে মুগ্ধ করতে পারেনি, তাই এবেলা খাওয়াও হয়নি। এই তল্লাটে বোধহয় আমি একাই মাতাল। কেউ সাড়া দিচ্ছেনা,তবুও চায়ের দোকানদার, টহল পুলিশ, স্টেশনমাস্টার,ব্যস্ত …

Spiralling

Seated within myself with a piece of parchment without direction without any thought about why or what or when or how but… …Wondering whether Michael Jordan would approve if I stole his pumps to impress a platypus and induce… ..Hallucination amidst raindrops and cheetahs who feel subjugated by angry chauvinistic zebras calling them sexy and …

সহজ জীবন

দেয়ালে ঝুলন্ত সময়ে চোখ রেখে- দিন মাস বছর যুগ হারিয়ে যায় মহাকালের কক্ষপথে। আদিগন্ত নিস্প্রান স্পর্শ! ব্যাস্ত দিনের ক্লান্তি নিয়ে পৃথিবীর বুকে ঘুমিয়ে পরে যান্ত্রিক শহর; একুরিয়ামে বন্দি চোখ অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে- নীল কাচের ওপারে ধূসর জগতে; প্রাচীন পিরামিডের কোঠরে সংরক্ষিত দিনলিপি’র মোড়কে ধুলোর আস্তরণ সরিয়ে স্মৃতিচারনে কাটে অবসর; অতীতের পথ ধরে ভবিষ্যতের অতলে …

অব্যক্ত

আঁচলের খুঁটে জমিয়ে রাখি কত কথা সুনিকেত। গোধূলীর আবীর রঙে ভিজতে ভিজতে ঐ চোখে চেয়ে কতবার বলতে গিয়েও বলা হয় নি- বরং আঁচলের খুটে বেঁধে রেখেছি সে শব্দ,”ভালোবাসি!” শেষ বর্ষায় সাইকেলের চেইন লাগাতে থেমে পড়েছিলে যখন আঁচলভর্তি কদমে লাল হয়ে থাকা চিবুক চিৎকার করে বলেছিলো কিন্তু ফের তাকে গিঁট বেঁধে ফেলে রেখেছি আঁচলের কোনে, সেই …

Distance

As we move, we hide ourselves. Distance, an illusion our senses take comfort in. Our lips clench, sipping wine, cups empty — sweeping dusty attics locking up skeletons. Our prose becomes hyperbole, and poetry — no space for that.

বেওয়ারিশ

আমি আমার লাশটা কাঁধে নিয়ে হাঁটছি।এখানে কেউ আমাকে চেনেনা।একজন বাজারের ব্যাগ হাতে এসে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থেকে দুঃখ করতে করতে চলে গেলো।আরেকজন হন্তদন্ত হয়ে ছুটে এসে বললো ‘পুলিশে খবর দিন কেউ!’একজন উৎসাহী সুরে বললো ‘বুকে কান পেতে দেখেন তো প্রাণ আছে কিনা।’এই বলতেই আরেকজন বললো ‘আরে এম্বুলেন্স খবর দিন কেউ, হাসপাতালে নিতে হবে’গুলিটা এসে বামদিকে লেগেছিলো, …

কবি

অবিরত নিজস্ব নিয়মে, একা একা যে ভাঙে নদীর মতো তাঁকে ‘কবি’ বলে ডাকো! খেতে দাও শৈশবের স্বপ্ন পোড়া ভস্ম, নুন,যাপিত আগুন,বিষাক্ত ফল…. আর শেখাও পাথরের কাঠিন্য, বৃক্ষের অপেক্ষা, মৃতদের ন্যায় শব্দহীন হবার কৌশল। তাঁকে ‘কবি’ নামে ডাকো! কক্ষনো শরীরে বন্ধনের সাঁকো দেখে জানতে চেয়ো না সে কেন আত্মঘাতী? সত্য যে, সে কোন যেকোন মানুষ নয়। …

দুঃস্বপ্নের সাড়ে তিন দশক

কেমন হতো যদি দেখতাম সাড়ে তিন দশক ধরে দু:স্বপ্নে আটকে আছি?  হুট করেই ঘুম ভেঙে নিজেকে আবিষ্কার করতাম আল্পস পর্বতমালার আশেপাশে তারপর নিজের পালকগুলোকে খুঁটে খুঁটে পরিষ্কার করে উড়াল দিতাম মেঘের উপর দিয়ে। ঘুরে ঘুরে আকাশে চক্কর কাটতে থাকতাম, আমার দৃষ্টি থাকত তীক্ষ্ণ ও স্বচ্ছ। তখন সহসা পেতাম না অমানুষ দেখতে  সংবাদপত্র পড়তে কিংবা বোকাবাক্সে …

আনন্দভ্রমণ

আমার রগে টানপড়ুক, আমার শরীর ব্যথায় বেঁকে যাক।  আমার শিরায়, উপশিরায়  ছড়িয়ে পড়ুক সায়ানাইড। আমার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হোক, ক্রোধের লাল রঙ বের হয়ে আসুক  নাকমুখ দিয়ে।  আমার চোখ জ্বলে পুড়ে গলে যাক বিষাক্ত অ্যাসিডে। নিশ্বাস বন্ধ হয়ে আসুক জীবননাশক গ্যাসে। আমার মৃত্যু হোক সবচেয়ে যন্ত্রণাময়। আমার মুখ থেতলে দিয়ে চলে যাক কোনো দ্রুতগামী ট্রেন।  সেই …

নতুন জন্মের কবিতা

তোমার কাছে সূর্যের আলো চলে আসে বাতাস বা জ্যোৎস্না চলে আসে। আসবেই। তুমি শুধু চলো সামনে চলো জন্মের দিকে চলো। কারণ ও দিকেই তোমার সুন্দর হারিয়েছে। হাঁটো আরও দ্রুত হাঁটো ছোটো আরও আরও দ্রুত দৌঁড়াও খাও-দাও বিশ্রাম করো। ভাবো প্রেমে ডুব দাও, ডুবাও ভেসে উঠো, ভাসাও। তারপর আবার চলো জন্মের দিকে চলো সামনের দিকে চলো …