নারীর জন্য, যাকে ভালোবাসা ‘যন্ত্রণা’


তুমি কোন বেপরোয়া অশ্ব হয়ে ছুটে চলো
আর সে চায় পোষ মানাতে।
তুলনা করে অসম্ভব রাজপথ
জ্বলন্ত ঘর এর কাছে,
বলে তুমি তাকে অন্ধ করে দিচ্ছ
যেন সে ছেড়ে যেতে না পারে,
ভুলে না থাকে,
যেকোনো কিছু কিন্তু তুমি;
তুমি তাকে এলোমেলো করে দাও, অসহ্য!
স্মৃতিগড়া’র সমস্ত নারীদের তুমি মুছে দিয়েছো,
তাকে পূর্ণ করেছো,
মোহিত স্মৃতিতে সে আহত।
তার শরীর তোমাতে কোন দীর্ঘ ছায়ার মতো
অথচ তোমার সবকিছুতেই বাহুল্য!
সে ভীত হয়ে ওঠে তোমার চাওয়ার ভঙ্গিতে,
নির্লজ্জতায় সবকিছুর বিনিময়ে;
সে বলে কোন পুরুষই তোমার মস্তিস্কের পুরুষলোকের মতো হতে পারবে না।
তবুও তুমি রদবদলের চেষ্টা করেছিলে, করনি?
তুমি আরও সয়ে কোমল হয়েছ
আরও সুন্দর
কম উদ্বায়ী, কম সতর্ক,
এমনকি তুমি ঘুমেও তাকে অনুভব করেছো,
যেন সে দূরে চলে যাচ্ছে তোমার থেকে তার স্বপ্নে;
তখন কি করতে চেয়েছিলে,ভালোবাসা!
তার মস্তক দ্বিখণ্ডিত করে দিতে?
প্রতিটা মানুষে তুমি বসবাস করতে পারো না!
অবশ্যই কেউ এটা জানিয়েছে।
তবুও যদি সে চলে যেতে চায়
তাকে চলে যেতে দাও।
তুমি অদ্ভুত, ভয়ংকর, সুন্দর,
অন্যশ্রী
যাকে সবাই ভালোবাসতে জানেনা।

Art: Martine Ehrhart

(Visited 103 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *